, শনিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২২

প্রকাশ :  ২০২২-১০-২৪ ১১:১৪:২৪

অবশেষে মূল পর্বে ১৫ বছর পর জয়ের খরা ঘুচলো টাইগারদের

দেখতে দেখতে ১৫টি বছর পার হয়ে গেছে। এই ১৫ বছরে সঠিক পরিকল্পনা করে এগিয়ে গেছে আফগানিস্তান। আইসিসির সহযোগি দেশগুলো পর্যন্ত এরমধ্যে বিশ্বমঞ্চে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করে দেখিয়েছে। অথচ, বাংলাদেশ হেঁটেছে শুধুই পেছনের পায়ে। টি-টোয়েন্টিতে একটি ভালোমানের দল হয়ে উটতে পারলো না টাইগাররা।

২০০৭ সালের প্রথম টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই শক্তিশালী ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে শুভ সূচনা করেছিল। সেইটাই প্রথম, যেন সেটাই ছিল শেষ। এর মধ্যে সব মিলিয়ে সাতটি বিশ্বকাপ চলে গেলো। সেই ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২ বার বিশ্বকাপ জিতলো; কিন্তু বাংলাদেশ রয়ে গেলো সেই তলানীতেই।

২০০৭ সালের পর আরও ৬টি ম্যাচ বিশ্বকাপে বাংলাদেশ জিতেছে। কিন্তু কোনোটিই মূল পর্বে নয়। বিশ্বকাপের মূল পর্বে খেলার সুযোগও অনেক পেয়েছে। জয়ের সুযোগও তৈরি করেছিল অনেক। কিন্তু কাঙ্খিত জয়ের দেখাটিই আর পেলো না।

অবশেষে সেই আক্ষেপ, সেই জয়ের খরা ঘুচলো বাংলাদেশের। বিশ্বকাপের

দেখতে দেখতে ১৫টি বছর পার হয়ে গেছে। এই ১৫ বছরে সঠিক পরিকল্পনা করে এগিয়ে গেছে আফগানিস্তান। আইসিসির সহযোগি দেশগুলোপর্যন্ত এরমধ্যে বিশ্বমঞ্চে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করে দেখিয়েছে। অথচ, বাংলাদেশ হেঁটেছে শুধুই পেছনের পায়ে। টি-টোয়েন্টিতে একটি ভালোমানের দল হয়ে উটতে পারলো না টাইগাররা।

২০০৭ সালের প্রথম টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই শক্তিশালী ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে শুভ সূচনা করেছিল। সেইটাই প্রথম, যেন সেটাই ছিল শেষ। এর মধ্যে সব মিলিয়ে সাতটি বিশ্বকাপ চলে গেলো। সেই ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২ বার বিশ্বকাপ জিতলো; কিন্তু বাংলাদেশ রয়ে গেলো সেই তলানীতেই।

২০০৭ সালের পর আরও ৬টি ম্যাচ বিশ্বকাপে বাংলাদেশ জিতেছে। কিন্তু কোনোটিই মূল পর্বে নয়। বিশ্বকাপের মূল পর্বে খেলার সুযোগও অনেক পেয়েছে। জয়ের সুযোগও তৈরি করেছিল অনেক। কিন্তু কাঙ্খিত জয়ের দেখাটিই আর পেলো না।

অবশেষে সেই আক্ষেপ, সেই জয়ের খরা ঘুচলো বাংলাদেশের। বিশ্বকাপের মূল পর্বে ১৫ বছর পর বাংলাদেশ প্রথম জয়ের দেখো পেলো এবার নেদারল্যান্ডসকে হারিয়ে।

হোবার্টের বেলেরিভ ওভালে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৪৪ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ। জবাব দিতে নেমে ১৩৫ রানে অলআউট হলো নেদারল্যান্ডস। ৯ রানের জয়ে এবারের বিশ্বকাপে শুভ সূচনা করলো টাইগাররা।

মূল পর্বে এটা হয়তো দ্বিতীয় জয়, কিন্তু বিশ্বকাপের দ্বিতীয় পর্বে এটাই বাংলাদেশের প্রথম জয়। সুপার এইট, সুপার টেন কিংবা সুপার টুয়েলভ- যে নামেই থাক না কেন, দ্বিতীয় পর্বে বাংলাদেশ মোট ১৭টি ম্যাচ খেললো। ১৬টি ম্যাচে পরাজয়ের পর এই প্রথম একটিতে পেলো জয়ের দেখা।

আরো সংবাদ