, শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২

প্রকাশ :  ২০২২-০৬-০৮ ১৫:৪০:১৪

চিনি রপ্তানিতে ভারতের রেকর্ড, দেশীয় চাহিদার সিংহভাগই ভারত থেকে আমদানিকৃত

২০২১-২০২২ মার্কেটিং বছরের মে পর্যন্ত চিনি রপ্তানিতে রেকর্ড করেছে ভারত। এ সময়ে দেশটি ৮৬ লাখ টন চিনি রপ্তানি করেছে। মার্কেটিং বছরটি শেষ হবে সেপ্টেম্বরে। বিশ্বে চিনি উৎপাদনে ভারত প্রথম ও রপ্তানিতে দ্বিতীয়। এর আগে অর্থাৎ ২০২০-২০২১ মার্কেটিং বছরে দেশটি ৭০ লাখ টন চিনি রপ্তানি করে। একই সময়ে দেশটিতে চিনির উৎপাদন ছাড়ায় তিন কোটি ১০ লাখ টন। বুধবার (৮ জুন) ইকোনমিক টাইমসের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

যদিও গম রপ্তানি নিষিদ্ধের পর গত মাসে চিনি রপ্তানিতে সীমা বেঁধে দেয় ভারত সরকার। অভ্যন্তরীণ চাহিদা মেটাতে পণ্যটির রপ্তানি এক কোটি টনে সীমাবদ্ধ রাখে দেশটি।

ইন্ডিয়ান সুগার মিলস অ্যাসোসিয়েশন (আইএসএমএ) জানিয়েছে, এরই মধ্যে প্রায় ৯৪ থেকে ৯৫ লাখ টন রপ্তানি চুক্তি হয়েছে। এর মধ্যে ২০২২ সালের মে শেষ পর্যন্ত প্রায় ৮৬ লাখ টন রপ্তানি করা হয়েছে।

বিশ্বের বৃহত্তম চিনি উৎপাদক ভারত, রপ্তানিতে তাদের অবস্থান কেবল ব্রাজিলের পেছনে। ভারত বিশ্বের অন্তত ১২১টি দেশে চিনি রপ্তানি করলেও তাদের প্রধান ক্রেতা ইন্দোনেশিয়া, বাংলাদেশ, সুদান ও সংযুক্ত আরব আমিরাত।

বাংলাদেশের মোট চাহিদার তুলনায় চিনির উৎপাদন অতি নগন্য। প্রায় ৯৬ শতাংশ চিনিই আমদানি করে মেটাতে হয় চাহিদা। অপরিশোধিত চিনির একটি বড় অংশই আসে ভারত থেকে। চলতি অর্থবছরে মোট আমদানির ৪৯ শতাংশের বেশি অপরিশোধিত চিনিই এসেছে ভারত থেকে।

আরো সংবাদ