, রোববার, ২৫ জুলাই ২০২১

রবিবার

বিষয় :

প্রকাশ :  ২০১৮-০৫-১২ ১৫:৪৪:১৫

লোহাগাড়ায় কলেজের পাশ থেকে দুর্গন্ধযুক্ত ময়লার স্তূপ পরিষ্কার করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ

কাইছার ইকবাল চৌধুরী, বঙ্গনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম.

লোহাগাড়ায় আলহাজ্ব মোস্তফিজুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের পাশ থেকে দুর্গন্ধযুক্ত ময়লার স্তূপ পরিষ্কার করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ।

১২মে শনিবার ১১টায় “আসুন, আমাদের এলাকা আমরা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করি“, এই স্লোগানকে সামনে রেখে কলেজ ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষকবৃন্দের উপস্থিতিতে ময়লা পরিষ্কারের কাজের উদ্ধোধন করেন মোস্তফা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান ও আলহাজ্ব মোস্তফিজুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের গভর্নিংবডির সভাপতি আলহাজ্ব মো: শফিক উদ্দীন।

এসময় তিনি বঙ্গনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, দীর্ঘদিন ধরে বটতলী শহর উন্নয়ন কমিটি কলেজের পাশেই ময়লাগুলো ফেলে আসছিল। কলেজের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের রাস্তা দিয়ে যেতে পঁচা দুর্গন্ধতার কারণে নাকে হাত দিয়ে যেতে হয়। এছাড়াও এলাকার লোকজন আমাকে অনেকবার বলেছে যে, ময়লাগুলো কলেজের সামনে না ফেলে অন্যত্রে ফেলতে বলারও কী কোন সচেতন লোক এলাকায় নেই??

জানতে চাইলে এ বিষয়ে তিনি আরো বলেন, আমরা সবসময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকতে পছন্দ করি। কলেজের সামনে এ ধরণের ময়লা থাকায় কলেজের পরিবেশের ভারসাম্য দিন দিন নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। তাই আমি কলেজ কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত মোতাবেক নিজ উদ্যোগে আজ কলেজে কর্মরত শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দ, শিক্ষার্থীবৃন্দ ও গভর্নিংবডির সদস্যবৃন্দের উপস্থিতিতে ময়লার স্তূপ থেকে ময়লা সরিয়ে আমার মালিকানা জায়গায় স্থানান্তর করি এবং ময়লাগুলো পুড়িয়ে ও কীটনাশক স্প্রের সাহায্যে জীবাণু ধ্বংস করি। আজকের পর থেকে শহরের ময়লাগুলো কলেজের সামনে না ফেলে নির্দিষ্ট কোন জায়গায় ফেলার জন্য কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টিও কামনা করেন তিনি।

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে কলেজের অধ্যক্ষ এ.কে.এম ফজলুল হক, উপাধ্যক্ষ এহেছামুল হক, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন অভিযান কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক মোহাম্মাদ ইলিয়াছসহ স্থানীয় সাংবাদিকবৃন্দরাও উপস্থিত ছিলেন।

এ ব্যাপারে শহর উন্নয়ন কমিটির আহ্বায়ক ও লোহাগাড়া সদর ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুরুচ্ছফা চৌধুরী বঙ্গনিউজ টোয়েন্টিফোরকে জানান,শহরের ময়লাগুলো ফেলার নির্দিষ্ট কোন স্থান না থাকায় ওখানে ফেলা হচ্ছে যদিও সে স্থানে ময়লা ফেলাটা দুঃখজনক। কেননা কলেজের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের প্রতিদিন এর পাশ দিয়ে হেঁটেই কলেজে যেতে হয়।

তিনি আরো বলেন, আমি উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক আয়োজিত এলাকার বিভিন্ন উন্নয়ন ও আইন শৃঙ্খলা মিটিং-এ বেশ কয়েকবার ময়লাগুলো ফেলানোর জন্য নির্দিষ্ট একটা স্থানের ব্যবস্থা করতে বললেও উপজেলা প্রশাসন আমাকে তা ব্যবস্থা করে দিতে ব্যর্থ হয়। আমি চাই, এলাকায় অব্যবহৃত নির্দিষ্ট কোন সরকারী জায়গায় শহরের ময়লাগুলো ফেলা হউক। যাতে করে পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট না হয় এবং এলাকার পরিবেশও দূষণমুক্ত থাকে। এ ব্যাপারে উপজেলা প্রশাসনের সহযোগীতাও চান তিনি।

এ বিষয়ে বক্তব্যের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহবুব আলমের মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে কল রিসিভ না হওয়ায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

আরো সংবাদ