, শনিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২২

প্রকাশ :  ২০২২-১০-০৯ ০৮:৪৯:৩৯

সপ্তম দফায় ফের ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করেছে উত্তর কোরিয়া

আবারও ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করেছে উত্তর কোরিয়া। স্থানীয় সময় রোববার সকালে মাত্র ৬ মিনিটের ব্যবধানে দুটি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে পিয়ংইয়ং। প্রতিবেশী দেশ জাপানের কর্তৃপক্ষ এমনটিই জানিয়েছে।

এ নিয়ে গত ২৫ সেপ্টেম্বরের পর সপ্তম দফায় এ ধরনের ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করলো পিয়ংইয়ং। একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণের ফলে ওয়াশিংটন ও টোকিওর নিরাপত্তা স্থিতিশীলতা ঝুঁকিতে পড়তে পারে। খবর আল জাজিরা।

সাম্প্রতিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষাগুলো মার্কিন সামরিক হুমকির বিরুদ্ধে ‘নিয়মিত ও আত্মরক্ষামূলক’ ব্যবস্থা, পিয়ংইয়ং তেমনটিই দাবি করছে বলে গতকাল শনিবার দক্ষিণ কোরিয়ার সংবাদমাধ্যম কোরিয়া হেরাল্ডের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছিল। যদিও এর একদিন পরই দুটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়লো কিম জং উন প্রশাসন।

রোববারের ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের পর জাপানের প্রতিরক্ষা প্রতিমন্ত্রী তোশিরো ইনো জানিয়েছেন, দুটি ক্ষেপণাস্ত্রই ১০০ কিলোমিটার উচ্চতা পর্যন্ত পৌঁছেছিল। যেগুলো প্রায় ৩৫০ কিলোমিটার দূরে গিয়ে আছড়ে পড়ে। এরমধ্যে প্রথম ক্ষেপণাস্ত্রটি স্থানীয় সময় রাত ১টা ৪৭ মিনিটে আর দ্বিতীয়টি এর ৬ মিনিট পর উৎক্ষেপণ করা হয়।

মার্কিন সামরিক বাহিনীর পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, উত্তর কোরিয়ার এ ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণের পরই মিত্র দেশ ও অংশীদারদের সঙ্গে শলাপরামর্শ শুরু করা হয়েছে। এসব একান্ত আলোচনায় পিয়ংইয়ংয়ের পারমাণবিক অস্ত্র ও ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচির ‘অস্থিতিশীল প্রভাব’ গুরুত্ব পাচ্ছে।

তবে তোশিরো ইনো জানিয়েছেন, ক্ষেপণাস্ত্র দুটি জাপানের বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলের বাইরে সাগরে পতিত হয়েছে। তবে ক্ষেপণাস্ত্রগুলোর ধরন কেমন ছিল, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এগুলো সাবমেরিন থেকে ছোড়া ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছিল কি না, সেটাও নিশ্চিত করা হবে।

এদিকে হাওয়াইভিত্তিক ইউএস ইন্দো-প্যাসিফিক কমান্ড এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, কোরিয়া ও জাপান প্রজাতন্ত্রের প্রতিরক্ষার প্রতি মার্কিন প্রতিশ্রুতিগুলো এখনো শক্ত আবরণে রয়েছে।

গত মঙ্গলবার পারমাণবিক অস্ত্রে সজ্জিত আগের চেয়ে অনেক দূর পাল্লার একটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করে উত্তর কোরিয়া। গত পাঁচ বছরের মধ্যে এই প্রথমবারের মতো জাপানের ওপর দিয়ে ওই ক্ষেপণাস্ত্রটি উৎক্ষেপণ করা হয়েছিল।

টোকিও উত্তর কোরিয়ার এ ধরনের পদক্ষেপ বারবার সহ্য করবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন জাপানের প্রতিরক্ষা প্রতিমন্ত্রী তোশিরো ইনো।

অন্যদিকে দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক বাহিনী এক বিবৃতিতে দাবি করেছে, উত্তর কোরিয়ার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ মারাত্মক উসকানির, যা শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানকে বিনষ্ট করছে।

আরো সংবাদ