, বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০

বৃহস্পতিবার

বিষয় :

প্রকাশ :  ২০১৮-০২-২২ ১০:৩৬:৫১

আগামী মার্চ-এপ্রিলে পুনরায় চালু হচ্ছে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি

নিউজ ডেস্ক,বঙ্গনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম.

আগামী মার্চ-এপ্রিলে পুনরায় খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি চালু হচ্চে বলে জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট মো. কামরুল ইসলাম।
বৃহস্পতিবার রাজধানীর খদ্য ভবন সভাকক্ষে সার্বিক খাদ্য পরিস্থিতি পর্যালোচনা সভায় তিনি একথা জানান।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে খাদ্য সংগ্রহ করতে না মজুদ কমে গিয়েছিল। তাই খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি স্থগিত করা হয়েছিল। তবে আগামী মার্চ-এপ্রিলে পুনরায় এ কর্মসূচি চালু হবে। এ কর্মসূচির আওতায় ১০ টাকা কেজি দরে ৫০ লাখ হতদরিদ্র পরিবারকে চাল দেয়া হবে।

কামরুল বলেন, খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় ৫০ লাখ হতদরিদ্র পরিবারকে বছরে দুইবার ১০ টাকা কেজি দরে চাল দেয়া হয়। ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর, অক্টোবার ও নভম্বর মাসে প্রথমবার এ কর্মসূচির আওতায় চাল দেয়া হয়। প্রথমবার হওয়ায় ওই সময় চাল বিতরণে কিছু সমস্যা হয়েছিল। কিছু দুর্নীতি ও অনিয়মও হয়েছিল। সেজন্য ৩৬ জন ডিলারের লাইসেন্স বাতিল, কিছু ডিলারের কার্ড বাতিল এবং অনিয়মের সঙ্গে জড়িতদের প্রায় সাড়ে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

তিনি বলেন, সেই ভুলত্রুটি থেকে শিক্ষা নিয়ে ২০১৭ সালের মার্চ-এপ্রিলে নির্ভুলভাবে চাল বিতরণ করা সম্ভব হয়েছিল। কিন্তু গত বছর হাওর অঞ্চলে হঠাৎ অতিবন্যা এবং কয়েকটি প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে ১২ লাখ টন খাদ্যশস্য সংগ্রহ করার কথা থাকলেও সংগ্রহ করতে পেরেছিলাম মাত্র আড়াই লাখ টন। তাই গত সেপ্টেম্বর, অক্টোবার ও নভম্বরে এ কার্যক্রম সময়িকভাবে স্থগিত করা হয়। তবে বর্তমানে সরকারের খাদ্যশস্য মজুদ লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি। তাই আগামী মার্চ-এপ্রিলে আবার এ কর্মসূচি যথা সময়ে চালু হবে।

মন্ত্রী বলেন, এই কার্যক্রমে প্রতিমাসে সরকারের দরকার হয় দেড় লাখ টন চাল। বর্তমানে যে পরিমাণ চাল সরকারের গুদামে মজুদ রয়েছে তাতে এ কর্মক্রম চালালে কোনো অসুবিধা হবে না।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব শাহাবুদ্দিন আহমেদ, খাদ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক মো. বদরুল হাসান প্রমুখ।

আরো সংবাদ