, শনিবার, ৬ মার্চ ২০২১

প্রকাশ :  ২০২১-০২-১৬ ১৬:৪৩:৫২

চট্টগ্রামের প্রতারক চক্রের মূল হোতা ও একাধিক মামলার আসামী মোঃ আইয়ুব গ্রেফতার

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি :
জাল ভিসা চক্র ও প্রতারকচক্রের মূল হোতা এবং একাধিক মামলার আসামী মো: আইয়ুবকে গ্রেফতার করেছে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ।
গেল ১৪ই ফেব্রুয়ারী(রোববার) চীফ জুডিসিয়াল হাকিম আদালতে সি.আর মামলা নং ২০৩/২০১৮ ইং তারিখে প্রধান আসামী মো: আইয়ুব(৪১) প্রতারণা করেও আবার আদালতে জামিনের জন্য আবেদন করলে আদালত উক্ত আসামীর জামিন না মঞ্জুর করে তাকে গ্রেফতারের নির্দেশ দেন এবং জেলহাজতে পাঠান।
প্রতারকচক্রের গডফাদার ও আসামী মোঃ আইয়ুব চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার চরম্বা ইউনিয়নের মৃত: আব্দুস ছালাম এর পুত্র বলে জানা যায়। এবং উক্ত মামলার ২নং আসামী রুবি আক্তার(৩৩) প্রতারক ও জাল-জালিয়াতির চক্রের প্রধান আসামী মো: আইয়ুবের ২য় স্ত্রী।
জানা যায় যে, আসামী মো: আইয়ুব(৪৩) দীর্ঘদিন ধরে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, ঢাকা ও মাদারীপুর জেলার বিভিন্ন ট্রাভেল এজেন্ট ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে এবং এলাকার বেকার ছেলেদেরকে বিদেশে প্রেরণ করে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে দিবে বলে জাল ভিসা সৃজন ও প্রদানের মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়ে আসছে। জাল ভিসা সৃজন ও প্রতারক চক্রের মূল হোতা ও একাধিক প্রতারণা এবং জাল জালিয়াতি মামলার প্রধান আসামী মো: আইয়ুবের সমস্ত কু-কর্মের অন্যতম সহযোগী তার ২য় স্ত্রী রুবি আক্তার(৩৩)।
আসামীর নিজ এলাকার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জৈনিক ব্যক্তি বলেন, এই চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে এলাকার নিরীহ মানুষদের বিদেশে কাজের ভিসা দেয়ার নামকরে প্রায় কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে আসছিল। উক্ত প্রতারকচক্রটির ফাঁদে পরে স্বর্বস্ব হারিয়েছেন অনেকে। অনেকে উক্ত আসামীদের ভিসার টাকা পরিশোধ করতে গিয়ে ঋণের বোঝা মাথায় নিয়ে বর্তমানে মানবেতর জীবনযাপন করছে বলেও জানা যায়। এদের মধ্যে একজন লোহাগাড়া উজির ভিটা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও সি.আর ২০৩/২০১৮ইং মামলার বাদী ও ভুক্তভোগী বাবু অরুণ কান্তি কর্মকার।
তিনি বলেন, আমার মতে প্রতারকচক্রের প্রধান আসামী মো: আইয়ুব একজন আন্তর্জাতিক মানের প্রতারক। তার প্রতারণার স্বীকার হয়ে বর্তমানে ঋণের বোঝা মাথায় নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে আমার মতো শত নিরীহ মানুষ। সে নিজেকে কখনো বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, আবার কখনো লোহাগাড়া যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য পরিচয় দিয়ে চলতো। এসব পরিচয়কে পুঁজি করে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সাথে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সেলফি ও ছবি তুলে সেই ছবি ফেইসবুকের মতো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপলোড দিতো আর নিজেকে বড় নেতা পরিচয়ে এলাকায় দাপিয়ে বেড়াতো। মূলত পাওনাদারদের কাছ থেকে নিজেকে সেইফ রাখতে সে এসব প্রতারণার নতুন নতুন কৌশন অবলম্বন করতো বলে জানাগেছে।
তার কাছে পাওনাদাররা তাদের পাওনা টাকা ফেরত চাইতে গেলে সে দলের ভূয়া পদবী ব্যবহার করে স্থানীয় প্রশাসনকে ও তার লালিত সন্ত্রাসীবাহিনী দিয়ে পাওনাদারদের জানে মেরে ফেলার হুমকিও দেয় বলে পাওনাদার সূত্রে জানা যায়।
তার ব্যাপারে খোঁজ নিতে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃবৃন্দের সাথে যোগাযোগ করা হলে ওনারা জানান, লোহাগাড়া উপজেলার আইয়ুব নামে কোন ব্যক্তি কেন্দ্রীয় যুবলীগের কমিটিতে নেই এবং সে তার প্রতারণা ও জাল জালিয়াতির কাজ পরিচালনার সুবিধার্থে নিজেকে এসব ভূয়া পরিচয় ব্যবহার করতো বলেও জানান নেতৃবৃন্দ।
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা শাখার মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা এডভোকেট কামরুন নাহার প্রতিবেদককে বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কোন অন্যায়কে সমর্থন করেনা এবং কোন প্রতারককেও না। প্রতারক আইয়ুবের বিরুদ্ধে বিভিন্ন জেলার পাওনাদারদের একাধিক মামলার বিষয়ে আমরাও জেনেছি। তাকে গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়ে জেলহাজতে পাঠিয়ে আদালত আইনের সঠিক ব্যবহার করেছেন বলেও জানিয়েছেন এই নেত্রী।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সম্প্রতি লকডাউন চলাকালীন সময়ে লোহাগাড়া বিবিবিলা বৌদ্ধ মন্দির ভাংচুরের অভিযোগ ও মাদক মামলায় গ্রেফতার হওয়া রকি বড়ুয়ার অন্যতম সহযোগী এই প্রতারকচক্রের গডফাদার আসামী মো: আইয়ুব। একাধিক জাল – জালিয়াতি মামলার প্রধান আসামী মো: আইয়ুব নিজেকে রকি বড়ুয়ার কাছের লোক পরিচয় দিয়ে এলাকার পাওনাদারদের পাওনা টাকা না দিয়ে উল্টো জানে মেরে ফেলার হুমকি দিতো বলে এলাকাবাসী ও একাধিক সূত্রে জানাগেছে।
বাদীপক্ষের আইনজীবী মো: জোবাইরুল হকের কাছে জানতে চাইলে ওনি বলেন, ভিসা জাল জালিয়াতি মামলার এই আসামী মো: আইয়ুবের বিরুদ্ধে ২০/০৭/২০১৮ইং তারিখে ১০,১৮,০০০/= (দশ লক্ষ আটার হাজার টাকা) আত্মসাৎের অপরাধে ৪০৬, ৪২০, ৪৬৭, ৪৬৮ ও ৪৭১ ধারায় সি.আর মামলা ২০৩/২০১৮, দায়ের করি। পরে মামলাটি আদালত আমলে নিয়ে ক্রিমিনাল ইনভেষ্টিগেশন ডিপার্টমেন্ট(সি আই ডি) কে তদন্ত ভারের দায়িত্ব দেন। সি আই ডি মামলায় উল্লেখিত ঘটনার বিষয়বস্তু তদন্তের পর জাল ভিসা সৃজন ও টাকা আত্মসাৎের বিষয়ে সত্যতা পেয়ে তদন্ত প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করে। পরে আসামীগণ আদালতে জামিনের আবেদন করলে আদালত জামিন না মঞ্জুর করে মামলার প্রধান আসামী ও ভিসা জাল জালিয়াতির মূল হোতা মো: আইয়ুবকে মহামান্য বিচারক গ্রেফতারের আদেশ দিয়ে কারাগারে পাঠান। বর্তমানে আসামী আইয়ুব(৪১) কারাগারে আছেন।
আসামী মোঃ আইয়ুবের গ্রেফতারের খবর পেয়ে ঢাকাস্থ রিক্রুটিং লাইসেন্স নং- ৭১৫ এর পরিচালক ইসরাফিল আজাদ প্রতিবেদককে জানান, এই প্রতারক আইয়ুবের কাছ থেকে ৩ বছর আগে থেকেই আমিও প্রায় ৮,৬৫,০০০/=(আট লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা) পায়। যার সি.আর মামলা নং ১৬৪০/১৮। সে আমার পাওনা টাকা চাইলে তা না দিয়ে উল্টো বিভিন্ন সময় সম্প্রতি গ্রেফতার হওয়া ভন্ড বৌদ্ধ ভিক্ষু রকি বড়ুয়ার প্রভাব কাটিয়ে আমাকে জানে মেরে ফেলার ও হুমকি দেয়।
চট্টগ্রামস্থ সিকদার ট্রাভেলস এর স্বত্বাধিকারী শামসুল ইসলাম সিকদার জানান, এই প্রতারকচক্রের প্রতারণার স্বীকার হয়ে আজ আমি দীর্ঘ ৩বছর যাবৎ বউ-বাচ্চা নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছি। আজ থেকে ৩ বছর আগে আমার এলাকার কয়েকজন অর্ধশিক্ষিত বেকার যুবকদের বিদেশে চাকরী দিবে বলে এই প্রতারক আইয়ুব(৪১) ও তার অন্যতম সহযোগী ২য় স্ত্রী রুবি আক্তার(৩৩) তাদের কাছ থেকে প্রায় ২০ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়। অপরদিকে উল্টো এসবের মধ্যে আমাকে ফাঁসানোর জন্য আমার অফিস থেকে চেক চুরি করে, তাৎক্ষণিক যার প্রমাণস্বরূপ লোহাগাড়া থানায় আমি সাধারণ ডায়রী করি। আমি প্রশাসনের প্রতি তার প্রতারণার উপযুক্ত শাস্তির জোর দাবী জানাচ্ছি এবং সেই সাথে পাওনাদাররা যাতে তাদের পাওনা টাকাগুলো ফেরত পায়, সে বিষয়ে প্রশাসনের সহযোগীতা ও হস্তক্ষেপ কামনা করছি।
You, Mamunur Rashid, S Islam Sikder and 6 others
1 Comment
15 Shares

আরো সংবাদ