, সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

সোমবার

বিষয় :

প্রকাশ :  ২০২০-০৮-০৭ ১৫:২৮:৩৯

চট্টগ্রামে ব্যবসায়ীর টাকা আত্মসাৎ করে উল্টো প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে জাহেদ মঞ্জু : থানায় সাধারণ ডায়রি

কাইছার ইকবাল চৌধুরী, চট্টগ্রাম :

চট্টগ্রামের ব্যবসায়ী জসীম উদ্দীনের কাছ থেকে টাকা আত্মসাৎ এর পর উল্টো প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে ভূমি মন্ত্রণালয়ের নাম ভাঙ্গিয়ে চলা এ.এ. জাহেদ মঞ্জু।

সূত্রে জানা গেছে, প্রতারক ও টাকা আত্মসাৎকারী জাহেদ মঞ্জু(৩৮) চট্টগ্রামের ডবল মুরিং থানা অধীনস্থ বেপারী পাড়ার আবু ছিদ্দিক ও মনোয়ারা বেগমের পুত্র।

অন্যদিকে ভুক্তভোগী ও ব্যবসায়ী জসীম উদ্দীন(৪০) চট্টগ্রামের লোহাগাড়া থানার চরম্বা ইউনিয়নের আব্দুল হাকিমের পুত্র বলে জানাগেছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে, ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী জসীম উদ্দীন বঙ্গনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, আমি চকরিয়া পৌরসভাস্থ এলাকায় একটি হোটেল ব্যবসা পরিচালনা করি । একদিন পরিচয়ের সুবাধে প্রতারক জাহেদ মঞ্জু(৩৮) নিজেকে ভূমি মন্ত্রণালয়ের উচ্চ পদে চাকুরীরত আছে এবং জমি-জমা সংক্রান্ত যেকোন কাজ করে দিতে পারবে বলে আমাকে আশ্বস্ত করে। আমি তার কথায় সরল বিশ্বাসে  তাকে আমার ভোগদখলীয় লোহাগাড়া মৌজার কিছু খাস জায়গা বন্দোবস্তি করে দিতে সহযোগীতা চাইলে সে আমার কাছ থেকে জায়গার কাগজপত্র এবং বিভিন্ন সময়ে সাত লক্ষ ত্রিশ হাজার টাকা নিয়ে যায়। পরবর্তীতে জায়গা বন্দোবস্তির কাজ কখন সম্পন্ন হবে জানতে চাইলে সে করে দিব, দিচ্ছি এসব বলে কাল ক্ষেপন করতে থাকে। এমতাবস্থায় আমি গত ১০ই এপ্রিল ২০২০ইং তারিখে প্রতারক জাহেদ মঞ্জুর মুঠোফোনে কল দিলে সে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং টাকা ফেরত চেয়ে কোন অভিযোগ কিংবা প্রশাসনকে অবহিত করলে আমাকে মেরে ফেলবে বলে প্রাণনাশের হুমকি দেয়। পরে আমি থানায় এ বিষয়ে একটি সাধারণ ডায়রি করি, লোহাগাড়া থানার জিডি নং ১০৮৭।

ভুক্তভোগী জসীম আরো বলেন, আমি আমার এলাকার স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গদেরকে  প্রাণনাশের হুমকি ও লেনদেনের বিষয়ে অবগত করেছি। বর্তমানে আমি আমার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে জানমালের নিরাপত্তা হীনতায় জীবনযাপন করছি। তাই প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম(বিএমএসএফ), চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা শাখার আইন বিষয়ক উপদেষ্টা এডভোকেট ইসহাক আহমদ বঙ্গনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, দেশে প্রতারকের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলছে। গত ক’দিন আগেও করোনার সার্টিফিকেট নিয়ে ভুয়া রিপোর্ট ও জাল-জালিয়াতিসহ নানা অর্থ আত্মসাৎ মামলায় গ্রেফতার হয়ে রিজেন্ট হাসপাতালের মালিক সাহেদ বর্তমানে কারাগারে আছে।

তিনি আরো বলেন, ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী জসীম উদ্দীনের সরল বিশ্বাসকে পুঁজি করে এবং ভূমি মন্ত্রণালয়ের উচ্চ পদস্থ চাকুরীজীবী হিসেবে নিজেকে পরিচয় দেয়া জাহেদ মঞ্জুর আসল পরিচয় খতিয়ে দেখে ব্যবসায়ীর টাকা আত্মসাৎ ও প্রতারণার অভিযোগ আমলে নিয়ে সুষ্ঠু ও ন্যায় বিচারের নিমিত্তে প্রশাসনের সুদৃষ্টি আকর্ষণ করছি ।

আরো সংবাদ