, শুক্রবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২০

শুক্রবার

বিষয় :

প্রকাশ :  ২০১৯-১২-০৪ ১৬:১৩:২৫

চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় ঘাতক জহিরের হাতে একেই পরিবারের দুই ভাই গুরুতর আহত

কাইছার ইকবাল চৌধুরী, চট্টগ্রাম:

চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে মোহাম্মদ সাহেদ (২৫) নামের এক কলেজ ছাত্র ও তার ভাই মোঃ শাকিল(২৩) গুরুতর আহত হয়েছে।

গত রোববার (১লা ডিসেম্বর) সকাল ১১টায় উপজেলার চরম্বা ইউনিয়নের বিবিবিলা, আশরাফ আলী সিকদার পাড়ায় ঘটনাটি ঘটে বলে নিশ্চিত করেছেন স্থানীয় ৪নং ইউপি সদস্য ওসমান গণি।

আহত মোহাম্মদ শাকিল পেশায় ব্যবসায়ী এবং আহত মোহাম্মদ সাহেদ মোস্তফিজুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের বিবিএস ১ম বর্ষের ছাত্র বলে স্থানীয় সূত্রে জানায়।

আরো জানা যায় যে, একেই এলাকার মৃতঃ শফিকুর রহমানের পুত্র মোহাম্মদ জহির উদ্দীন(২৫) এর কাছ থেকে সাহেদ পাওনা টাকা চাইতে গেলে দুজনের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে জহির সাহেদের উপর চড়াও হয়ে তার কাছে থাকা ধারালো ছুরি দিয়ে সাহেদের বুকের বাম পাশে ছুরিকাঘাত করলে দূর থেকে সাহেদের ছোট ভাই শাকিল দৌড়ে আসে এবং সে সাহেদকে বাঁচানোর চেষ্টা করলে তাকেও ঘাতক জহির ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ঘটনাস্থলে ঘাতক জহিরের সহযোগী ছিল একেই এলাকার হাবিবুর রহমানের পুত্র মোঃ মানিক(২৬), আলী আহমদের পুত্র মোঃ পারভেজ(২৭), বড়হাতিয়া এলাকার নবাব মিয়ার পুত্র মোঃ রুবেল, ঘাতক জহিরের ভাই মোঃ জাহাঙ্গীর আলম(২৭) এবং আরেক ভাই মোঃ আলমগীর(৩৩)। ঘাতক জহিরের ছুরিকাঘাতে সাহেদ ও শাকিল গুরুতর আহত হয়। আহত অবস্থায় তাদের লোহাগাড়া উপজেলা সদরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সাহেদকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন বলে পরিবারসূত্রে জানায়। বর্তমানে সাহেদ চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালের ক্যাজুয়াল্টি ইউনিটের ২নং সিটে গুরুতর আহত অবস্থায় ভর্তি আছে এবং শাকিল উপজেলা সদরের হাসপাতালে ভর্তি আছে বলে জানা যায়।

স্থানীয়সূত্রে জানা যায়, ঘাতক জহির মহসিন কলেজে পড়াবস্থায় শিবির সংগঠনের সাথে জড়িত থাকার দরুন পুলিশের হাতে একাধিকবার গ্রেফতার হয়েছিল।

এব্যাপারে লোহাগাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাইফুল ইসলামের কাছ থেকে জানতে চাইলে তিনি প্রতিবেদককে বলেন, বিষয়টি আমি জেনেছি। এখনও এ বিষয়ে কেউ অভিযোগ দেয়নি তাই আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। অভিযোগ পেলে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান তিনি।

এই ঘটনার মামলা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে অাহত সাহেদের দুলাভাই, মোঃ শফিক দৈনিক ইনফো বাংলাকে জানায়, এ ব্যাপারে মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

আরো সংবাদ