, সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

সোমবার

বিষয় :

প্রকাশ :  ২০১৯-০২-২২ ০৯:২৩:৪৭

চকবাজারে পুড়ে যাওয়া ৫টি ভবনে লাল সাইনবোর্ড ও ফিতা

বঙ্গনিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক : পুরান ঢাকার চকবাজারের চুড়িহাট্টায় আগুনে পুড়ে যাওয়া ও আংশিক পোড়া পাঁচটি ভবনে লাল-কালো কালিতে লেখা সাইনবোর্ড টাঙানো হয়েছে। লাল ফিতা দিয়ে কর্ডন করা হয়েছে ভবনগুলো।

আজ ভোরে সাইনবোর্ডগুলো টাঙান ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা।

সাইনবোর্ডে লেখা, ‘ঝুকিপূর্ণ ভবন। ভবনটি ব্যবহার না করার জন্য সবাইকে বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো’। যেসব ভবনে সাইনবোর্ড টাঙানো হয়েছে সেগুলো হলো- চুড়িহাট্টার নন্দ কুমার দত্তের ১৮, ৬৩/২,৬৩/৩, ৬৪, ৬৫ নং ভবন।

শুক্রবার সকাল থেকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) ১১ সদস্যের কমিটি ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ৫ সদস্যের কমিটি ভবনগুলো পরিদর্শন করে। আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত চুড়িহাট্টা মোড়ের সড়কের রাবিশ সকাল থেকে পরিষ্কার করতে দেখা গেছে সিটি কর্পোরেশনের পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের।

পরিদর্শনের সময় ডিএসসিসির কমিটির আহ্বায়ক ও সংস্থাটির প্রধান প্রকৌশলী রেজাউল করিম বলেন, আমরা ক্ষতিগ্রস্ত ভবনগুলো পরিদর্শনে এসেছি। আগুনে ৫টি ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর মধ্যে তিনটি ভবন প্রাথমিকভাবে ব্যবহারের অনুপযোগী বলে মনে হয়েছে। আবাসিক এলাকায় কেমিক্যাল গোডাউনের অনুমতি নেই। যে কোনো মূল্যে সবাই মিলে এসব এলাকার কেমিক্যাল গোডাউন সরিয়ে নেয়া হবে।

এতদিন সরানো হয়নি কেন- জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা প্রতিনিয়তই চেষ্টা করে যাচ্ছি। এবার যে কোনো মূল্যে সেসব সরিয়ে নেয়া হবে। এ ছাড়া ভবনগুলো ব্যবহারের উপযোগী কি না জানা যাবে, এক সপ্তাহ পর।
গত বুধবার রাতে পুরান ঢাকার চকবাজারের চুড়িহাট্টার ৬৪ নম্বর ওয়াহেদ ম্যানশনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড হয়। রাত পৌনে ১১টায় লাগা আগুন ফায়ার সার্ভিসের ৩৭টি ইউনিট নিয়ন্ত্রণে আনে রাত সাড়ে ৩টায়।

এ ঘটনায় শুক্রবার সকাল পর্যন্ত মোট ৬৭ জন নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে ঢাকা জেলা প্রশাসন। আহত ও দগ্ধ অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৪১ জন। তাদের মধ্যে দু’জনকে নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়েছে। বাকিদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক।

অগ্নিকাণ্ডের কারণ উদঘাটনসহ দুর্ঘটনার সার্বিক বিষয় তদন্তের জন্য সুরক্ষাসেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (অগ্নি অনুবিভাগ) প্রদীপ রঞ্জন চক্রবর্তীকে আহ্বায়ক করে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। কমিটিকে সাত দিনের মধ্যে রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া দোষীদের চিহ্নিত করতে ১১ সদস্যের কমিটি গঠন করেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি)। অগ্নিকাণ্ডের কারণ অনুসন্ধান, প্রাথমিক ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ এবং অগ্নিদুর্ঘটনা পুনরাবৃত্তিরোধে সুপারিশ প্রদানের জন্য শিল্প মন্ত্রণালয় ১২ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে।

মর্মান্তিক এ ঘটনায় নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনার জন্য শুক্রবার দেশের সব মসজিদে বাদ জুমা বিশেষ মোনাজাতের অনুরোধ করেছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শেখ মো. আব্দুল্লাহ।

আরো সংবাদ