, রোববার, ৫ এপ্রিল ২০২০

রবিবার

বিষয় :

প্রকাশ :  ২০১৮-১০-১৪ ১০:৩১:১৯

শীঘ্রই এসিসির প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন পাপন

বঙ্গনিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক: খালি চোখে ভারতের একচ্ছত্র প্রাধান্য মনে হলেও এশিয়ার ক্রিকেটের অভিভাবক সংস্থা এসিসির প্রধান হন মূলত এ অঞ্চলের চার টেস্ট খেলিয়ে দেশ ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা ও বাংলাদেশ থেকেই। এটা মূলত চলমান প্রক্রিয়া ও পালাবদলের মাধ্যমে হয়ে থাকে।

এক মেয়াদে ভারত থেকে হলে পরের মেয়াদের সভাপতি নিযুক্ত হন অন্য টেস্ট খেলিয়ে দেশ থেকে। সাধারণত ভারত, পাকিস্তান, বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট বোর্ড মনোনীত প্রতিনিধি বা সভাপতিরাই হন এসিসির প্রেসিডেন্ট।

সেই চলমান প্রক্রিয়ায় এশীয় ক্রিকেটের অভিভাবক সংস্থা এসিসির পরবর্তী শীর্ষ কর্তা হবেন বাংলাদেশ থেকে। তিনি আর কেউ নন। নাজমুল হাসান পাপনই হতে যাচ্ছেন এসিসি প্রধান। বলার অপেক্ষা রাখে না, বিসিবি আগেই নাজমুল হাসান পাপনকে বাংলাদেশের প্রতিনিধি মনোনীত করেছে। তারই ধারাবাহিকতায় এশিয়ান ক্রিকেটের অভিভাবক সংস্থা এসিসির প্রধান হবেন নাজমুল হাসান পাপন।

আগামী ১৮ নভেম্বর পাকিস্তানের লাহোরে হবে এসিসির বার্ষিক সাধারণ সভা। সেখানে পাকিস্তানের মাটিতে বসে পাকিস্তানেরই এহসান মানিকে সরিয়ে এসিসির নতুন সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব নেবেন বিসিবির বর্তমান প্রধান পাপন।

উল্লেখ্য, এখন চলমান প্রক্রিয়ায় এসিসির প্রেসিডেন্ট হিসেবে কাজ করছেন পাকিস্তানের এহসান মানি। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন তার চেয়ারে বসবেন। এহসান মানির কার্যমেয়াদ শেষেই দু বছরের জন্য এসিসির প্রধান হবেন পাপন।

বলার অপেক্ষা রাখেনা, এর আগেও বাংলাদেশ থেকে ক্রিকেট বোর্ডের প্রতিনিধি বা শীর্ষ কর্তা এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের প্রধানের দায়িত্ব পালন করেছেন। বিসিবির দুই সাবেক সভাপতি আলী আসগর লবি এবং আ হ ম মোস্তফা কামালও এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট ছিলেন।

আরো সংবাদ