, বৃহস্পতিবার, ১ অক্টোবর ২০২০

বৃহস্পতিবার

বিষয় :

প্রকাশ :  ২০১৮-০৪-০৯ ১০:০৬:১৭

কোহলির পুরনো ভুলে বিধ্বংসী নারিন!

নিউজ ডেস্ক, বঙ্গনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম.

আরও একবার পুরনো ভুল করে বসলো রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু। মেকশিপ্ট ওপেনার সুনীল নারিনকে আটকাতে শুরুতেই স্পিন আক্রমণ নিয়ে আসলেন বিরাট কোহলি। কোহলির বোধ হয় পরিসংখ্যানে চোখ ছিল না। নারিন যে শুরুতে স্পিন পেলেই জ্বলে উঠেন!

জ্বলে উঠলেন রোববার রাতেও। তারকায় ঠাসা রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু বলতে গেলে উড়ে গেল নারিনের ব্যাটিংয়ে। যার পরিচয় বোলিংয়ে, সেই অফস্পিনে চার ওভার হাত ঘুরিয়ে ৩০ রানে নিতে পারলেন মোটে একটি উইকেট। পরে সেটা পুষিয়ে দিলেন ব্যাটিংয়ে, সেটাও যেনতেন পজিশনে নয়-ওপেনিংয়ে।

নারিনের ১৯ বলে ৫০ রানের তান্ডবেই ১৭৬ রানের লড়াকু পুঁজি নিয়েও জয় পাওয়া হলো না ব্যাঙ্গালুরুর। ৪ বাউন্ডারি আর ৫ ছক্কার ইনিংসে ১৭ বলেই হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন ক্যারিবীয় অলরাউন্ডার। আইপিএলের ইতিহাসে যেটি যৌথভাবে চতুর্থ দ্রুততম হাফসেঞ্চুরির রেকর্ড।

কিন্তু কিভাবে এত বিধ্বংসী হয়ে উঠছেন নারিন? দেখা যাচ্ছে, শুরুতে স্পিন আক্রমণ দিলেই ভয়ংকর হয়ে উঠছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই অলরাউন্ডার। রোববার রাতেও কোহলি শুরু করেছিলেন স্পিনার যুজবেন্দ্র চাহালকে দিয়ে। প্রথম দুই বলেই চার আর ছক্কা হজম করেন তিনি। এরপর আরেক স্পিনার ওয়াশিংটন সুন্দরের এক ওভারে দুটি ছক্কা আর একটি চার হাঁকিয়ে হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করেন নারিন।

গত বছর আইপিএলের দ্রুততম হাফসেঞ্চুরির রেকর্ডটিও (১৫ বলে) কোহলির ব্যাঙ্গালুরুর বিপক্ষেই গড়েছিলেন নারিন। সেবার তিনি ১০ বলে ৩০ রান নিয়েছিলেন শুধু স্পিনার স্যামুয়েল বদ্রির ওভারে। আউট হয়েছিলেন পেসার অনিকেত চৌধুরীর বলে।

পরিসংখ্যান বলছে, স্পিনের বিপক্ষে ভীষণ সাবলীল নারিন। টি-টোয়েন্টিতে যতবার ব্যাটিং ওপেন করতে নেমেছেন, পেসের বিপক্ষে তিনি রান করেছেন ১৫.৯৩ গড়ে, যেখানে স্পিনের বিপক্ষে গড় ৩৬। স্পিনের বিপক্ষে ব্যাটিংয়ের নিয়ন্ত্রণ (৬৯ ভাগ) পেসের চেয়ে (৫১ ভাগ) বেশি।

নারিনের আউটগুলোও এই পরিসংখ্যানে জোর হাওয়া দেবে। ৩৬টি ইনিংসে নারিন ২৯ বারই আউট হয়েছেন পেস বোলিংয়ে। রোববারও শেষ পর্যন্ত সাজঘরে ফেরেন পেসার উমেশ যাদবের বলে। কোহলির নিশ্চয়ই পরেরবার এই বিষয়গুলো মাথায় থাকবে!

আরো সংবাদ